মেনু নির্বাচন করুন

এক নজরে

এক নজরে

 

ইসলামের প্রচার ও প্রসারের লক্ষ্যে ১৯৭৫ সালের ২২ মার্চ্‌ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এক অধ্যাদেশ বলে ইসলামিক ফাউন্ডেশন প্রতিষ্ঠা করেন। পরবর্তীকালে ১৯৭৫ সালের ২৮  মার্চ্  বাংলাদেশ জাতীয় সংসদে অ্যাক্ট আকারে তা অনুমোদিত হয়। ইসলামিক ফাউন্ডেশন অ্যাক্ট অনুযায়ী ইসলামের সমুন্নত আদর্শ্ ও মূল্যবোধের লালন ও চর্চা  করার জন্য ইসলামিক ফাউন্ডেশন কার্যক্রম  গ্রহণ ও বাস্তবায়ন করে থাকে।

বর্তমানে ইসলামিক ফাউন্ডেশন ধর্মীয় এবং আর্থ্ সামাজিক উন্নয়নে বিভিন্ন ধরণের কার্য্‌ক্রম গ্রহন করেছে। মসজিদ ভিত্তিক শিশু ও গণশিক্ষা কার্যক্রম প্রকল্পের আওতায় সিরাজগঞ্জ জেলায় ৬৩৬ টি প্রাকপ্রাথমিক, ৭৯৩ টি কোরআনশিক্ষা ও ১২টি বয়স্ক শিক্ষা কেন্দ্র স্থাপন করা হয়েছে । বিগত ৩ বছরে ৫৫,০০০ জন শিশুকে প্রাক-প্রাথমিক শিক্ষা, ৬৫০০০ জন শিক্ষার্থীকে কোরআন শিক্ষা এবং ৯০০জন বয়স্ক-শিক্ষাথীকে ধর্মীয় ও নৈতিকতা বিষয়ক শিক্ষা প্রদান করা হয়েছে। মানুষের মধ্যে নৈতিকতা ও ইসলামিক মূল্যবোধের বিকাশ সাধন ও ইসলামের প্রচার প্রসারের লক্ষ্যে বিগত  বছরসমূহে  সর্বমোট ৭১৮টি টাইটেলের ৪১৮৭০ টি বই বিপনন করা হয়েছে। ধর্মীয় নেতৃবৃন্দ/ ইমাম সাহেবগণ তৃণমূল পর্যায়ের জনগণের সবচেয়ে নিকটতম ধর্মীয় ব্যক্তিত্ব হিসেবে গণ্য হয়ে থাকেন। সমাজের নৈতিক ও আর্থ-সামাজিক উন্নয়ন লক্ষ্যে ইমাম প্রশিক্ষণ একাডেমীর মাধ্যমে তাদের প্রশিক্ষণ প্রদান করা হয়। বিগত তিন বছরে ১৮৭জনকে ইমাম প্রশিক্ষণের জন্য মনোনীত করা হয়েছে। স্কুল, কলেজ ও মাদ্রাসায় অধ্যয়নরত শিশু-কিশোরদের নৈতিকতা উন্নয়নের জন্য ২৮ টি সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। গত ৩ বছরে সর্বমোট ৬৬ টি মসজিদ পাঠাগার স্থাপন করা হয়েছে। বিগত ০৩ বছরে মোট ১৪,৯৭,৩০০/-টাকা যাকাত সংগ্রহ করা হয়েছে এবং ৩০০ জনকে যাকাত প্রদান করা হয়েছে। ইমাম মুয়াজ্জিন কল্যান ট্রাষ্টে মাধ্যমে ২১৬ জনকে আর্থিক সাহার্য্য প্রদান এবং ৭০জনকে সুদমুক্ত ঋণ প্রদান করা হয়েছে।